A Reliable Media

ঘুষ লেনদেনে এশিয়ায় শীর্ষে ভারত

ঘুষ লেনদেনে এশিয়ায় শীর্ষে ভারত

অনলাইন ডেস্ক: ঘুষ লেনদেনের দিক থেকে এশিয়ার মধ্যে প্রথম অবস্থানে আছে ভারত। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনালের (টিআই) ‘গ্লোবাল করাপশন ব্যারোমিটার- এশিয়া ২০২০’ শীর্ষক এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে বেশি ঘুষ লেনদেন হয় ভারতে। এরপর ঘুষ লেনদেনের দিক থেকে এশিয়ার মধ্যে দ্বিতীয় অবস্থানে আছে কম্বোডিয়া।

চলতি বছরের জুলাই থেকে সেপ্টেম্বরের মধ্যে এশিয়ার ১৭টি দেশের ২০ হাজার মানুষকে নিয়ে এক সমীক্ষা চালিয়ে এই প্রতিবেদনটি করে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল (টিআই)।

সমীক্ষায় অংশ নেওয়া দেশটির ৩৯ শতাংশ মানুষ জানিয়েছেন ভারতে সরকারি সুযোগ-সুবিধা পেতে হলে ঘুষ দিতে হয়। এশিয়ার মধ্যে এটিই সর্বোচ্চ ঘুষের হার। অন্যদিকে চীনে এই ঘুষের হার ২৮ শতাংশ, বাংলাদেশে ২৪ শতাংশ, নেপালে ১২ শতাংশ ও জাপানে ২ শতাংশ।

পুলিশ, আদালত, সরকারি হাসপাতাল, পরিচয়পত্র পাওয়ার প্রক্রিয়া, বিদ্যুৎ ও পানির মতো পরিষেবা পাওয়ার ক্ষেত্রে ঘুষ দেওয়ার অভিজ্ঞতার বিষয়ে জানতে চাওয়া হয় ওই সমীক্ষায়। সেখানে ৪২ শতাংশ মানুষ জানিয়েছেন পুলিশকে ঘুষ দিতে হয়েছে। পরিচয় পাওয়ার প্রক্রিয়াতে এবং অন্যান্য সরকারি কাগজপত্র পেতে ঘুষ দিয়েছে ৪১ শতাংশ মানুষ।

সমীক্ষায় আরও উঠে আসে যে ভারতে কোনো সরকারি পরিষেবা পাওয়ার জন্য ওপর মহলে যোগাযোগ করেন ৪৬ শতাংশ মানুষ। তার মধ্যে ৩২ শতাংশ মানুষ মনে করেন, ওপর মহলে যোগাযোগ না করলে তারা এই পরিষেবা পেতেন না।
ভারতের ৪৭ শতাংশ মানুষ বিশ্বাস করেন যে গত ১২ মাসে (করোনাকালসহ) দেশটিতে দুর্নীতি বেড়েছে। একইসঙ্গে ৬৩ শতাংশ মানুষ মনে করেন যে, দুর্নীতি মোকাবিলায় সরকার ভালো কাজ করছে।

জরিপে এই প্রথমবার সরকারি কর্মকর্তাদের পরিষেবার দিতে যৌনতা চাওয়ার বিষয়ও অন্তর্ভুক্ত করা হয়। এ ক্ষেত্রে ভারতে হার ১১ শতাংশ। ইন্দোনেশিয়ায় ১৮ শতাংশ, শ্রীলঙ্কায় ১৭ ও থাইল্যান্ডে ১৫ শতাংশ।

ভারতে নির্বাচনের মাঠে ঘুষের লেনদেন সম্পর্কে সমীক্ষায় বলা হয়েছে দেশটিতে এই ঘুষ লেনদেনের হার ১৮ শতাংশ এবং এ লেনদেনে দেশটি চতুর্থ স্থানে অবস্থান করছেন। ২৮ শতাংশ হার নিয়ে এ লেনদেনের শীর্ষে অবস্থান করছে থাইল্যান্ড ও ফিলিপাইন।

সরকারি কর্মকর্তাদের পরিষেবার দিতে যৌনতা চাওয়ার বিষয়টি এই প্রথমবার জরিপে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। এ ক্ষেত্রে ভারতে হার ১১ শতাংশ। ইন্দোনেশিয়ায় ১৮ শতাংশ, শ্রীলঙ্কায় ১৭ ও থাইল্যান্ডে ১৫ শতাংশ।

editor

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *