A Reliable Media

‘প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও করোনায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ’

‘প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও করোনায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ’

‘প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও করোনায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ’

মোঃ আব্দুল ওয়াফু (তপু)

সাধারন সম্পাদক
বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ
সদর উপজেলা শাখা, ঠাকুরগাঁও।

সেবা-শান্তি-প্রগতির পতাকাবাহী সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সন্মানিত সভাপতি জননেত্রী শেখ হাসিনার নিজ হাতে গড়া “বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ”। বঙ্গবন্ধুর আজীবনের স্বপ্ন সন্ত্রাস, দুর্নীতি, দারিদ্র্য,নিরক্ষরতা ও শোষনমুক্ত সোনার বাংলাদেশ গঠন কল্পে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের লক্ষ ও উদ্যোশ্য। বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ অতিক্রম করছে গৌরবোজ্জ্বল সংগ্রাম ও সাফল্যের ২৭টি বছর। আজ ২৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী। ১৯৯৪ সালের এই দিনে আওয়ামী লীগের সন্মানিত সভাপতি জননেত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের প্রাক্তন নেতাদের সমন্বয়ে সংগঠনটি প্রতিষ্ঠা করেন। সংগঠনটির প্রতিষ্ঠিতা নেতা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জনাব আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম।

বর্তমানে আওয়ামী লীগের অন্যতম শক্তিশালী সহযোগী সংগঠন হিসেবে স্বেচ্ছাসেবক লীগকে মনে করা হয়। বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের মূল লক্ষ ও উদ্দেশ্য হচ্ছে দেশ ও দেশের জনগনের কল্যানে ঝুঁকি পূর্ণ কাজে অংশগ্রহণ করা ও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের আদর্শকে লালন করে দেশের কল্যানে নিজেকে নিয়োজিত রাখা। এই জন্যই স্বেচ্ছাসেবক লীগের মূল নীতিঃ সেবা-শান্তি-প্রগতি।

বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে প্রতিবছর এই দিনে সংগঠনের নেতাকর্মীরা বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহন করে থাকে কিন্তু সারা বিশ্বের মত বাংলাদেশেও ছড়িয়ে পরেছে নোভেল করোনা ভাইরাস। আর এই কারনে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উৎযাপনে মিছিল মিটিং শো ডাউন আলোকসজ্জা সহ যে কোন ধরনের গন জমায়েত নিষিদ্ধ করেছে কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগ। তবে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে সারা দেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা নেতা কর্মীদের মধ্যে আনন্দ উৎসাহ উদ্দীপনার কমতি নেই। সারা দেশে স্বাস্থ্য বিধি মেনে জেলা ও উপজেলায় দলিয় কার্যালয়গুলোতে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন। রাজধানীর ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে সরকারি বাসভবন গণভবনে শুভেচ্ছা বিনিময় ও সারাদেশের নেতাকর্মীদের সাথে ভিডিও কনফারেন্স। এ সময় জাতির জনকের কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখবেন। বিকেলে বঙ্গবন্ধু দৌহিত্র সজীব ওয়াজেদ জয় এর শুভ জন্মদিন উপলক্ষে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মিলাদ ও দোয়া প্রার্থনা অনুষ্ঠিত।

আজকের এই শুভ জন্মদিনে স্বেচ্ছাসেবক লীগের সকল স্তরের নেতাকর্মীদের জানায় আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা। স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীরা প্রতিষ্ঠাকাল থেকে আজ পর্যন্ত জননেত্রী শেখ হাসিনার বিশ্বস্থ সৈনিক হিসেবে দেশ ও জনগণের কল্যানে নিরলস ভুমিকা পালন করে যাচ্ছে।

বর্তমানে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের দায়িত্বে রয়েছেন সভাপতি-জনাব নির্মল রঞ্জন গুহ ও সাধারন সম্পাদক-এ কে এম আফজালুর রহমান বাবু। তাদের নেতৃত্বে স্বেচ্ছাসেবক লীগ সুশৃংখলা, সুসংগঠিত ও শক্তিশালী সংগঠন হিসেবে জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতিটি নির্দেশনা মেনে জনগণের মঙ্গলে কাজ করে যাচ্ছে। করোনার প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকেই বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশক্রমে কর্মহীন হয়ে পরা অসহায় মানুষদের পাসে কাজ করছে।

প্রাণঘাতী ভয়ংকর এই করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় নিরলস কাজ করে যাচ্ছে বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার। সরকারের সার্বিক সহায়তায় বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলোও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কাজ করছে। ঠিক তেমনি বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীরা করোনায় অসহায় মানুষদের পাসে শুরু থেকেই কাজ করে যাচ্ছে। কেন্দ্রীয় সভাপতি জনাব নির্মল রঞ্জন গুহ সাধারণ সম্পাদক এ কে এম আফজালুর রহমান বাবুর নির্দেশে দেশের প্রতিটি জেলায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা কর্মীরা করোনা পজিটিভ মানুষের পাসে চিকিৎসা সেবা ও করোনায় যারা মৃত্যু বরন করছে সেই মৃত লাসের দাফন কাফনে সহায়তায় হাত বাড়িয়ে দিচ্ছে। মৃত ব্যাক্তির গোসল, কাফনের কাপর ও জানাজার নামাজ সহ যা কিছু প্রয়োজন সব কিছু স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীরা করার চেষ্টা করছে। করোনার কারনে কর্মহীন হয়ে পরা একজন মানুষকেও যেন না খেয়ে দিন যাপন করতে না হয় সেই লক্ষে তাদের হাতে খাবার পৌঁছে দেওয়ার কাজটি করোনা প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত স্বেচ্ছাসেবক লীগ তাদের সাধ্যমত করে যাচ্ছে।

সেবা-শান্তি-প্রগতির শ্লোগানে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের উদ্যোগে সারা দেশে বিনা মূল্যে টেলি মেডিসিন(টেলি হেল্থ কল সেন্টার) ও অক্সিজেন সেবা নিশ্চিত করতে কাজ করছে। সেই সাথে স্বাস্থ্য, তথ্য ও এম্বুলেন্সের সু-ব্যাবস্থায় কাজ করে যাচ্ছে। বাংলাদেশের প্রতিটি জেলা শহর ছাড়িয়ে প্রত্যন্ত গ্রাম এলাকায় সচেতনতামূলক প্রচারনা, হেন্ডসেনিটাইজার, মাক্স ও খাবার বিতরন সহ অনেক কিছু চলমান রয়েছে। যে কোন দূর্ভোগ ও দূর্যোগে সেবক হিসেবে পাসে থাকায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের মূল নীতি। করোনার কারনে যে সব অসহায় কৃষক নিজের ফসল কেটে ঘরে তুলতে পারছিলনা তাদের ধান কেটে দিয়েছে স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীরা। বন্যা কবলিত মানুষের পাসে শুকনো খাবার বিতরন এবং বৃক্ষ রোপন কর্মসুচী সহ বিভিন্ন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। দেশে এই কঠিন মুহুর্তে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিটি উদ্যোগকে দেশের সাধারন মানুষ সাধুবাদ জানিয়েছে।

আমার জেলা “ঠাকুরগাঁও” করোনা প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ ঠাকুরগাঁও জেলা শাখার নেতৃত্বে অসহায় হয়ে পরা মানুষের পাশে স্বেচ্ছাসেবকলীগের নেতা কর্মীরা নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। সদর উপজেলা শাখার সকল স্তরের নেতাকর্মীরা করোনা প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত প্রতিটি ইউনিয়নে অসহায় মানুষদের পাসে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। আমি আন্তরিক ভাবে ধন্যবাদ জানায় ব্লক/ওয়ার্ড শাখার সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক,ইউনিয়ন শাখার সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক,পৌর শাখার সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা শাখার সংগ্রামী সভাপতি সহ সকল স্বেচ্ছাসেবকলীগ এর নেতা কর্মী ও সমর্থক ভাইদের।

ঠাকুরগাঁও জেলাতে এবারের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ভিন্নরূপে পালিত হচ্ছে। বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ ঠাকুরগাঁও জেলা শাখার সংগ্রামী সভাপতি জনাব নাজমুল হুদা শাহ্ এ্যাপোলো ভাইয়ের নিজ উদ্যোগে এবং তার সার্বিক সহায়তায় ঠাকুরগাঁও জেলার প্রতিটি উপজেলা/থানা/পৌর এলাকায়” করোনা প্রতিরোধ বুথ” তৈরী করা হয়েছে। সেখানে করোনা রুগী সহ সকল মনুষকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে সেবা প্রদানের ব্যাবস্থা আছে।যেমন-টিকার জন্য ফ্রী রেজিষ্ট্রেশন, মাক্স বিতরন, হেন্ড-সেনিটাইজার,অক্সিজেন, সচেতনতা মূলক প্রচারনা ও অসহায় মানুষদের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ।

আমি বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা শাখার একজন ক্ষুদ্র কর্মী হয়ে মানব সেবাই স্বেচ্ছাসেবক লীগের কর্ম পরিসরে থাকতে পেরে গর্ববোধ করছি।

পরিশেষে বলতে চাই,এই শুভ দিনে স্বেচ্ছাসেবকলীগ এর সকল নেতাকর্মীদের প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হতে হবে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা ও ক্ষুধা দারিদ্র মুক্ত দেশ গড়তে আওয়ামীলীগ এর পাশে থেকে শেখ হাসিনার নির্দেশিত সকল কার্যক্রম গুলোতে সর্বোচ্চ ভুমিকা পালন করার। জাতির জনকের কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জামাত শিবির বি এন পি এর সকল সন্ত্রাস নৈরাজ্য জালাও পোড়াও রুখে দিয়ে মুক্তি যুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী ও উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রেখে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশ ও দেশের জনগনের কল্যানে নির্দেশিত সকল কার্যক্রম বিশ্বস্ততার সাথে পালন করে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অঙ্গসংগঠন হিসেবে “স্বেচ্ছাসেবকলীগ” বাংলার ইতিহাসের অংশ হিসেবে থাকবে ” ইনশাআল্লাহ”।

জয় বাংলা
জয় বঙ্গবন্ধু
জয় হোক বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ।

editor

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *